Header Border

ঢাকা, শুক্রবার, ৩০শে জুলাই, ২০২১ খ্রিস্টাব্দ | ১৫ই শ্রাবণ, ১৪২৮ বঙ্গাব্দ (বর্ষাকাল) ২৫.৯৬°সে

রিফাতের ৬ খুনি যশোর শিশু উন্নয়ন কেন্দ্রে

বিল্লাল হোসেন,যশোর প্রতিনিধি:  বরগুনার চাঞ্চল্যকর রিফাত শরীফ হত্যা মামলার ৬ আসামিকে যশোর শিশু উন্নয়ন কেন্দ্রে নেয়া হয়েছে। যদিও ৬ জনের মধ্যে একজন বুধবার বরগুনা আদালত থেকে জামিন পেয়েছে।

মঙ্গলবার চার্জশিটভুক্ত ওই ৬ আসামি বরগুনা আদালতে জামিন প্রার্থনা করলে সিনিয়র জুডিসিয়ল ম্যাজিস্ট্রেট মোহাম্মদ সিরাজুল ইসলাম গাজী তাদের জামিন আবেদন না মঞ্জুর করেন এবং একই সাথে তাদের যশোর পুলেরহাটস্থ শিশু উন্নয়ন কেন্দ্রে রাখার নির্দেশ দেন। সে মোতাবেক বুধবার বিকেলে তাদের যশোরে নেয়া হয়েছে।

তারা হলো ,বরগুনা শহরের ধানসিঁড়ি সড়কের আহসান হাবিবের ছেলে রাশেদুল হাসান রিশান ওরফে রিশান ফারাজী, চড়কগাছিয়া সড়কের সানু হাওলাদারের ছেলে অলিউল্লাহ ওরফে অলি, শহরের আমতলা পাড়ার অরুণ সরকারের ছেলে জয় চন্দ্র সরকার ওরফে চন্দন, শহরের ডিকেটি রোডের নয়া মিয়ার ছেলে তারভির হোসেন, সদর উপজেলার পটকাখালী এলাকার হাফিজুর রহমানের ছেলে নাজমুল হাসান এবং বাজার রোডস্থ ইউনুচ সোহাগের ছেলে আরিয়ান হোসেন শ্রাবণ।

যশোর শিশু উন্নয়ন কেন্দ্রের সাইকোসোস্যাল কাউন্সিলর মুশফিকুর রহমান সরকার জানিয়েছেন, ৬ আসামি বরগুনা আদালতের নির্দেশে বুধবার বিকেলে যশোর শিশু উন্নয়ন কেন্দ্রে আনা হয়েছে। তাদের প্রত্যেকের বয়স ১৬ থেকে ১৭ বছরের মধ্যে। আসামিদের মধ্যে আরিয়ান হোসেনের জামিন হয়েছে বলে জানতে পেরেছি। দুই একের মধ্যে জামিননামা তার পরিবারের লোকজন যশোরে নিয়ে আসতে পারে। আসামি রিশান ফারাজি এই হত্যা মামলার এক নম্বর আসামি রিফাত হোসেনের ছোট ভাই। তারা বরগুনা জেলা পরিষদের চেয়ারম্যান দেলোয়ার হোসেনের ভাগ্নে।

গত ২৬ জুন সকালে প্রকাশ্যে বরগুনা সরকারি কলেজ গেটের সামনে কুপিয়ে হত্যা করা হয় রিফাত শরীফকে।এই ঘটনায় রিফাতের পিতা আব্দুল হালিম দুলাল ১২জনের নাম উল্লেখ করে একটি মামলা করেন। মামলার প্রধান আসামি নয়ন বন্ড গত ২ জুলাই পুলিশের সাথে ‘বন্দুকযুদ্ধে’ নিহত হয়। মামলার প্রধান সাক্ষী রিফাতের স্ত্রী মিন্নিকে গত ১৬ জুলাই পুলিশ হেফাজতে নিয়ে জিজ্ঞাসাবাদ করে। পরে পুলিশ তাকেসহ ২৩ জনের নামে চার্জশিট দেয় আদালতে।

আপনার মতামত লিখুন :

আরও পড়ুন

স্বেচ্ছাসেবক লীগ নেতার উপর যুবলীগ নেতার হামলা
এক মিনিটের সারা বিশ্ব
পুরোনো বগিতে অতিরিক্ত যাত্রী নিয়ে চলছিল উদয়ন
যুবলীগ কর্মীর নেতৃত্বে যুবককে খাওয়ানো হলো মলমূত্র।
সংঘর্ষ থামাতে গিয়ে লাশ হলেন তিনি
জুতার ভিতরে ভরে ইয়াবা পাচার। আওয়ার বার্তা।

আরও খবর